February 26, 2024

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ব্যর্থতা নিয়ে মুখ খুললেন শ্রীরাম

ডেস্ক সংবাদ: ওয়ানডে বিশ্বকাপ যাত্রা অনেক আগেই শেষ হয়েছে বাংলাদেশ দলের। যেখানে গ্রুপ পর্ব থেকেই বাজেভাবে বিদায় নিতে হয়েছে টাইগারদের। সবমিলিয়ে ৯ ম্যাচ খেলে মোটে ২ ম্যাচে জয় পেয়েছে সাকিব আল হাসানের দল। আসর শেষ করেছে টেবিলের আটে থেকে। এমন ব্যর্থতার পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছে ক্রিকেটার থেকে শুরু করে বোর্ড কর্তারাও।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে থাকা টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট শ্রীধরন শ্রীরাম এবার মুখ খুললেন ব্যর্থতা নিয়ে। ভারতীয় গণমাধ্যম ক্রিকইনফোকে জানিয়েছেন, ব্যাটারদের ব্যর্থতার কথা, অল্পতেই খুশি থাকার প্রবণতা। কথা বলার সময় নিউজিল্যান্ড অলরাউন্ডার রাচিন রবীন্দ্রকেও উদাহরণ হিসেবে টেনেছেন তিনি।

শ্রীরাম বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যর্থতার বড় কারণ হলো সেঞ্চুরি করতে না পারা। বড় স্কোর পেতে হবে। বিশ্ব ক্রিকেট এখন সে দিকেই চলছে। সব তরুণই ৫০ রানকে সেঞ্চুরিতে রূপান্তরিত করতে সক্ষম হচ্ছে। রাচিন রবীন্দ্র একটি বড় উদাহরণ। এখান থেকে বাংলাদেশ কিছু শিখতে পারে।

ওপেনার তানজিদ তামিমকে নিয়ে শ্রীরাম বলছিলেন, ‘ভারতের বিপক্ষে পঞ্চাশ করেছিল তানজিদ। সেদিন বোলাররা ছিল তার নিয়ন্ত্রণে। উইকেট খুব ভালো ছিল। বাংলাদেশের রান ছিল ৯৭ (৯৩) বিনা উইকেটে। সেদিন সেই পঞ্চাশকে শত রানে রূপান্তরিত করতে পারত। তাহলে ব্যাটারদের সমস্যা নিয়ে এই প্রশ্ন আপনি আমাকে করতেন না। সেখানেই তিনি নিজেকে বড় সময় হারিয়ে ফেলে। সেখানেই মানসিকতা বদলাতে হবে। আন্তর্জাতিক ফিফটিতেই তারা সন্তুষ্ট হয়ে যায়

বাংলাদেশের হয়ে একটি মাত্র সেঞ্চুরি হয়েছে এবার বিশ্বকাপে। সেটাও করেছেন মিডল অর্ডার ব্যাটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। টপ অর্ডারের কোনো ব্যাটার সেঞ্চুরি না পাওয়ায় হতাশ শ্রীরামও, যা দলের জন্য হতাশাজনক হিসেবে দেখছেন তিনি।

শ্রীরাম বলছিলেন, ‘শীর্ষ চার ব্যাটারের কেউই সেঞ্চুরি করতে পারেননি। এটি হতাশাজনক বিষয়। আমি মনে করি, ৫০ ওভারের ম্যাচ তখনই জিতবেন যখন কেউ ১৩০-১৪০ রান করবে এবং তারপরে সকলে মিলে সেটিকে ৩৩০-৩৪০ রানে নিয়ে যাবে। ভারতে যেখানে খেলা হয়, সেখানকার উইকেট অনেক ভালো। কিন্তু বাংলাদেশে কিছুটা ভিন্ন।

About The Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *