February 26, 2024

তারুণ্যের ভবিষ্যৎ ভাবনায় স্বদেশ-বিদেশ

বাংলাদেশের শতকরা ৪২ ভাগেরও বেশি তরুণ-তরুণী দেশের বাইরে চলে যেতে চান। আবার ৭০ ভাগের বেশি তরুণ মনে করেন, দেশেই অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব।

এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমন অনেক তথ্য।

ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর পিস অ্যান্ড জাস্টিস (সিপিজে)-এর সহযোগিতায় বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশিপ সেন্টার (বিওয়াইএলসি)-এর করা ‘ইয়ুথ ম্যাটার্স সার্ভে ২০২৩’ শীর্ষক জরিপে আরো অনেক তথ্য উঠে এসেছে। তবে এই জরিপের গবেষকরা বলছেন, জরিপে ইতিবাচক চিত্রও পাওয়া গেছে। ৭০ ভাগের বেশি তরুণ মনে করেন এই দেশেই তাদের ব্যক্তিগত অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে। তরুণদের একটি অংশ দেশের বাইরে চলে যেতে চাইলেও শতকরা প্রায় ৬০ ভাগ যে দেশেই থাকতে চান সেটাও একটা ইতিবাচক দিক বলে তারা মনে করেন।

দেশের সব বিভাগকে এই জরিপের আওতায় আনা হয়েছে। ১৬-৩৫ বছর বয়সি পাঁচ হাজার ৬০৯ জন অংশগ্রহণকারীর ওপর ফেসবুকের মাধ্যমে তারা এই জরিপ চালায়।

জরিপে অংশ নেয়া ৬৮.৬ শতাংশ তরুণ-তরুণী মনে করেন, বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা কর্মসংস্থান বা ব্যবসায়িক উদ্যোগের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জনে সহায়ক নয়।

উত্তরদাতাদের ৫৫ শতাংশ মনে করেন, বাংলাদেশ একটি শান্তিপূর্ণ দেশ নয়। ৫৭ শতাংশ মনে করেন, গত পাঁচ বছরে দেশে বিচার ব্যবস্থার অবনতি হয়েছে।

৮৮.৮ শতাংশ তরুল-তরুণী দুর্নীতিকে দেশের উন্নয়নের পথে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন। আর ৬৭.৩ শতাংশ বেকারত্বকে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে মনে করছেন।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৫০.৫ শতাংশ মূল্যস্ফীতি এবং অর্থনৈতিক সংকটকে প্রধান এই সময়ের চ্যালেঞ্জ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

৬১.৮ শতাংশ উত্তরদাতার মতে, তাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর মূল্যস্ফীতি নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। আর ৪০ শতাংশ উত্তরদাতার ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে চাকরির নিরাপত্তাহীনতা।

৭৩.৪ শতাংশ জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবের মুখোমুখি হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

জরিপে দেখা যায় ৭১.৫ শতাংশ তরুণ-তরুণী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মতো পাবলিক প্ল্যাটফর্মে মত প্রকাশকে অনিরাপদ মনে করেন।  আর ১৮ বছরের বেশি যাদের বয়স, তাদের ৭২ শতাংশ তরুণ-তরুণী আগামী জাতীয় নির্বাচনে ভোট দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

ফলে জরিপে অংশ নেয়া ৪২.৪ শতাংশ তরুণ-তরুণী বিদেশে যেতে চান এবং যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

About The Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *