February 26, 2024

আমি প্রেসিডেন্ট থাকলে কিন্তু এই অবস্থা হতো না : ট্রাম্প

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, তিনি যদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট থাকতেন, তাহলে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাসের যে যুদ্ধ চলছে, তা কোনোভাবেই ঘটতো না। আর এই যুদ্ধের জন্য জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের অদক্ষতা ও অদূরদর্শীতা-ই দায়ী। সোমবার (৯ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্যে এক প্রচারণা সভায় অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ট্রাম্প আরও বলেন, কয়েকদিন ধরে ইসরায়েলে যা হচ্ছে তা রীতিমতো ভয়াবহ, বিভৎস। অথচ আমি যখন প্রেসিডেন্ট ছিলাম তখন আমাদের শান্তি ছিল, শক্তিও ছিল; কিন্তু এখন? এখন চারিদিকে আমরা দুর্বলতা, সংঘাত ও বিশৃঙ্খলা দেখছি। ইসরায়েলে আমরা যে নৃশংসতা দেখছি, আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, আমি যদি প্রেসিডেন্ট থাকতাম, তাহলে এমন ঘটতো না।

‘আমাদের দেশের দিকেই তাকিয়ে দেখুন। কত কত দেশ থেকে আমাদের দেশে লোকজন ঢুকছে, ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমরা জানিও না তারা কোথা থেকে এসেছে। আজ ইসরায়েলে হামলা হয়েছে, আগামীতে যে আমরাও নিরাপদ থাকবো, তার নিশ্চয়তা কী?’

ট্রাম্প আরও বলেন, ওই ভদ্রলোক (জো বাইডেন) ইসরায়েলের নিরাপত্তার জন্য কিছু করেছেন? আমদের নিরাপত্তার জন্য কোনো পদক্ষেপ নিয়েছেন? নেননি। তিনি কিছুই করেননি।

নিজ বক্তব্যে ইসরায়েলের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, হামাসের এই হামলা খুবই গ্লানিকর ও ইসরায়েলের সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে নিজেদের পূর্ণ শক্তি দিয়ে হামলা ঠেকানোর। কিন্তু, দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশের কিছু করদাতা এসব সন্ত্রাসী হামলার পেছনে অর্থায়ন করে যাচ্ছে। এই ধরনের করদাতাদের সংখ্যা বাড়ছে ও বাইডেন প্রশাসন তাদের শনাক্ত করতে ব্যর্থ।

আমি প্রেসিডেন্ট থাকলে কিন্তু এই অবস্থা হতো না : ট্রাম্প

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, তিনি যদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট থাকতেন, তাহলে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাসের যে যুদ্ধ চলছে, তা কোনোভাবেই ঘটতো না। আর এই যুদ্ধের জন্য জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের অদক্ষতা ও অদূরদর্শীতা-ই দায়ী। সোমবার (৯ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্যে এক প্রচারণা সভায় অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ট্রাম্প আরও বলেন, কয়েকদিন ধরে ইসরায়েলে যা হচ্ছে তা রীতিমতো ভয়াবহ, বিভৎস। অথচ আমি যখন প্রেসিডেন্ট ছিলাম তখন আমাদের শান্তি ছিল, শক্তিও ছিল; কিন্তু এখন? এখন চারিদিকে আমরা দুর্বলতা, সংঘাত ও বিশৃঙ্খলা দেখছি। ইসরায়েলে আমরা যে নৃশংসতা দেখছি, আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, আমি যদি প্রেসিডেন্ট থাকতাম, তাহলে এমন ঘটতো না।

‘আমাদের দেশের দিকেই তাকিয়ে দেখুন। কত কত দেশ থেকে আমাদের দেশে লোকজন ঢুকছে, ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমরা জানিও না তারা কোথা থেকে এসেছে। আজ ইসরায়েলে হামলা হয়েছে, আগামীতে যে আমরাও নিরাপদ থাকবো, তার নিশ্চয়তা কী?’

ট্রাম্প আরও বলেন, ওই ভদ্রলোক (জো বাইডেন) ইসরায়েলের নিরাপত্তার জন্য কিছু করেছেন? আমদের নিরাপত্তার জন্য কোনো পদক্ষেপ নিয়েছেন? নেননি। তিনি কিছুই করেননি।

নিজ বক্তব্যে ইসরায়েলের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, হামাসের এই হামলা খুবই গ্লানিকর ও ইসরায়েলের সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে নিজেদের পূর্ণ শক্তি দিয়ে হামলা ঠেকানোর। কিন্তু, দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশের কিছু করদাতা এসব সন্ত্রাসী হামলার পেছনে অর্থায়ন করে যাচ্ছে। এই ধরনের করদাতাদের সংখ্যা বাড়ছে ও বাইডেন প্রশাসন তাদের শনাক্ত করতে ব্যর্থ।

About The Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *